সালাতুত তাওবা বা তাওবার নামাজ কখন পড়বেন ও পড়ার নিয়ম

 


ছালাতুত তওবা

যদি কেহ কোন গুনাহ করে ফেলে তবে ক্ষমা পাওয়ার জন্য প্রথমে অজু গোসল করে ২ রাকায়াত নামায পড়বে , অতপর একাধিকবার নিম্নোক্ত দোয়া পড়বে ।

استغفر الله ربي من كل ذنب واتوب اليه . 

তঃপর আল্লাহ তা'য়ালার দরবারে দু'হাত তুলে বলবে

 اللهم اني اتوب إليك منها لاارجع اليها ابدا اللهم مغفرتك اوسع من ذنوبي ورحمتك ارجي عندي من عملی .

অর্থঃ হে আল্লাহ ! আমার কৃত গুনাহ হতে আপনার নিকট তওবা করতেছি । আমি আর কখনো এই গুনাহ করবো না । হে আল্লাহ ! আপনার ক্ষমা আমার গুনাহরাশির চেয়ে অধিক ব্যাপক এবং আপনার দয়া করুনা আমলের চেয়ে বেশি আশার বস্তু।


তাওবার নামাজ পড়ার সময়

তওবার নামাজ আপনি সকাল ৭ টা থেকে ১২ টা পযন্ত পড়তে পারবেন এরপর আবার বিকাল ১.৩০ থেকে সন্ধ্যা পযন্ত পড়তে পারবেন পারবেন। তবে রাতে যেকোনো সময়ে পড়তে পারবেন।


তাওবার নামাজ পড়ার নিয়ম


১. প্রথমে নিয়ত করতে হবে আমরা এই

আমি কিবলামূখী দাঁড়িয়ে আল্লাহুকে রাজি খুশি করার জন্য তওবার ২ রাকাত নফল নামাজ আদায় করলাম আল্লাহু আকব।

২. এরপর সানা পড়বেন


سُبْحَانَكَ اَللَّهُمَّ وَبِحَمْدِكَ وَتَبَارَكَ اسْمُكَوَتَعَا لَى جَدُّكَ وَلاَ اِلَهَ غَيْرُكَ

সুবহা-না কাল্লা-হুম্মা ওয়া বিহাম্ দিকা ওয়াতাবারঅ কাস্ মুকা ওয়াতা’ আ-লা জাদ্দুকা ওয়া লা-ইলা-হা গাইরুক।

৩. সানা শেষ করে

أَعُوْذُ بِاللَّهِ مِنَ الشَّيْطَانِ الرَّجِيمِ


‘আউজুবিল্লাহি মিনাশ শায়ত্বানির রাজিম’

بِسْمِ اللهِ الرَّحْمنِ الرَّحِيْمِ

‘বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

৪. সূরা ফাতিহা পড়বেন


ﺍﻟـﺮَّﺣْﻤﻦِ ﺍﻟﺮَّﺣِﻴْﻢِ ﺍﻟْﺤَﻤْﺪُ ﻟﻠّﻪِ ﺭَﺏِّ ﺍﻟْﻌَﺎﻟَﻤِﻴﻦَ ﺍﻟﺮَّﺣْﻤـﻦِ ﺍﻟﺮَّﺣِﻴﻢِ ﻣَﺎﻟِﻚِ ﻳَﻮْﻡِ ﺍﻟﺪِّﻳﻦِﺇِﻳَّﺎﻙَ ﻧَﻌْﺒُﺪُ ﻭﺇِﻳَّﺎﻙَ ﻧَﺴْﺘَﻌِﻴﻦُﺍﻫﺪِﻧَــــﺎ ﺍﻟﺼِّﺮَﺍﻁَ ﺍﻟﻤُﺴﺘَﻘِﻴﻢَ

ﺻِﺮَﺍﻁَ ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﺃَﻧﻌَﻤﺖَ ﻋَﻠَﻴﻬِﻢْ ﻏَﻴﺮِ ﺍﻟﻤَﻐﻀُﻮﺏِ ﻋَﻠَﻴﻬِﻢْ ﻭَﻻَ ﺍﻟﻀَّﺎﻟِّﻴﻦَ

আল – হামদু লিল্লাহি রাব্বিল । আলামিন আর রাহমানির রাহিম । মালিকি ইয়াওমিদ্দিন ।ইয়্যাকানাবুদু ওয়া ইয়্যাকা নাসতাইন । ইহ দিনাস | সিরাতাল মুস্তাকীম । সিরাতাল লাযিনা আনআমতা আলাইহিম ।গাইরিল মাগদুবি আলাইহিম ওয়ালাদ দুয়ালিন । আমিন ।

৪. সূরা ফাতিহা শেষ করার পর অন্য যেকোনো সূরা মিলাবেন।

৫. সূরা ফাতিহা শেষ করে আমিন পরবেন।

৬. অন্য যেকোনো সূরা মিলাবেন ছোট সূরা সকলে সুন্নত তরিকায় সূরাগুলো পড়ার চেষ্টা করবেন ইনশাআল্লা। যেমন সূরা  ফীল প্রথম রাকাতে পড়বেন আর পড়ে যে সূরা নিচের গুলো পড়ার চেষ্টা করবেন।

মোট কথা হলো অন্য নামাজের মতোই ২ রাকাত নামাজ পড়বেন নফলের নিয়্যাতে।