তারাবীর সালাতের রাকাআত প্রসঙ্গে একটি উপমা


তারাবীর সালাতের রাকাআত প্রসঙ্গে একটি উপমা

ধরুন আপনি ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম যাবেন। ভাড়া জানা নেই। একজনকে জিজ্ঞাসা করলেন ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম ভাড়া কত?তিনি বললেন ৮০ টাকা।

আপনি আরেকটু নিশ্চিত হওয়ার জন্য আরেকজনকে জিজ্ঞাসা করলেন ভাড়ার বিষয়ে। তিনি বললেন ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম ভাড়া ২০০ টাকা। এখন আপনি কি করবেন? কার কথামতো টাকা নিয়ে বাসা থেকে বের হবেন?

যদি আপনি প্রথম ব্যক্তির কথামতো ৮০ টাকা সাথে নিয়ে বের হোন তাহলে যদি সত্যিই ভাড়া ৮০ টাকা হয় তাহলে আপনি গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবেন।কিন্তু ভাড়া যদি সত্যিই ২০০ টাকা হয় তাহলে আপনার আদৌ গন্তব্যে পৌঁছা হবে না।

আর ২য় ব্যক্তির কথামতো ২০০ টাকা সাথে নিয়ে বের হলে ভাড়া ২০০ হলে তো আপনি গন্তব্যে পৌঁছাবেন'ই।কিন্তু যদি ৮০ টাকাও হয় তাহলে বাকী টাকা আপনার রাস্তায় নাস্তা পানির জন্য কাজে আসবে।

ঠিক তেমনিভাবে তারাবীর সালাত যদি প্রকৃতপক্ষেই আল্লাহর কাছে ৮ রাকাআত হয় তাহলে যারা ৮ রাকাআত আদায় করলেন তারাও মুক্তি পেলেন আর যারা ২০ রাকাআত আদায় করলেন তারাও মুক্তি পেলেন।সাথে বাদবাকী রাকাআতের বিনিময় তারা জান্নাতে ভোগ করতে পারবে।

কিন্তু যদি আল্লাহ্ তায়া’লা ২০ রাকাআতের হিসাব চান(যেহেতু তারাবীও সালাত,তাই এর হিসাবও চাওয়া হতে পারে) তাহলে যারা ২০ রাকাআত আদায় করলেন তারা ছাড়া পেলেন,কিন্তু যারা ৮ রাকাআত আদায় করলেন তারা বাদবাকি রাকআত কোথায় থেকে আনবেন?তখন কোনো শায়েখের দোহাই কাজে আসবে কি?

বিরোধিতার জন্য বিরোধিতা করলে হবে না। দ্বীনকে সহজে মেনে নেওয়ার মানসিকতা তৈরি করা জরুরি।কারণ কোনো শায়েখ ইসলামের দলিল নন।

আল্লাহ্ তায়া’লা সকলকে সহীহ্ বুঝ দান করুন।আমিন