ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর প্রাক-প্রাথমিক ও বয়স্ক কেন্দ্রের শিক্ষক নির্বাচন করার সময় যে বিষয় সমূহ দেখা হয়



 ‘মসজিদ ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম’ প্রকল্প ইসলামিক ফাউন্ডেশন-এর একটি অন্যতম বৃহৎ প্রকল্প আর্থ-সামাজিক উন্নয়নমুলক কর্মকান্ড ও শিক্ষা বিস্তারের কাজে মসজিদের ইমাম সাহেবদের সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে সরকার ১৯৯৩ সালে মসজিদ ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম প্রকল্পের আওতায় প্রাক-প্রাথমিক এবং ঝরে পড়া (ড্রপ-আউট) কিশোর-কিশোরী ও অক্ষর জ্ঞানহীন বয়স্কদের জন্য ‘‘মসজিদ ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম’’ এর কাজ শুরু করে এ প্রকল্পের আওতায় ইতোমধ্যে ৬টি পর্যায় শেষ করে বর্তমানে ৭ম পর্যায়ে পদার্পণ করেছে।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রাক-প্রাথমিক ও বয়স্ক কেন্দ্রের শিক্ষক নির্বাচন করার নিয়ম।


১। প্রকল্প দপ্তর থেকে প্রেরিত নিয়মাবলী / নীতিমালা অনুসরণপূর্বক উপজেলা পর্যায়ের কমিটির মাধ্যমে প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত কেন্দ্র ও কেন্দ্র শিক্ষক নির্বাচন তালিকাসমূহ সমন্বয় সাধন / কম্পাইল এবং চূড়ান্ত করার জন্য বিভাগীয় / জেলা অফিসে নিম্নরূপ একটি কমিটি থাকবেঃ 

(ক) অফিস প্রধান- সভাপতি,)

(খ) কার্যালয়ের অন্য সকল কর্মকর্তা ( ফিল্ড অফিসারসহ ) সদস্য(

গ) মাস্টারট্রেইনার

(ঘ) সংশ্লিষ্ট উপজেলার ফিল্ড সুপারভাইজার সদস্য সচিব ।


২। (ক) মসজিদ কমিটি / স্থানীয় কমিউনিটির প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় প্রাথমিকভাবে শিক্ষক নির্বাচন করতে হবে ।

(খ) আবেদনে মসজিদ কমিটি / কমিউনিটির লিখিত প্রত্যায়ন এবং অনাপত্তিপত্র থাকতে হবে ।

(গ) মসিজদ কমিটি বা কমিউনিটির লিখিত প্রত্যায়ন ও অনাপত্তিপত্র ছাড়া শিক্ষক নিয়োগের আবেদনপত্র গ্রহণ করা যাবে না ।

(ঘ) সংশ্লিষ্ট মসজিদের ইমাম / মুয়াজ্জিন অপারগতা প্রকাশ করলে অথবা তাদের প্রয়োজনীয় শিক্ষাগত যোগ্যতা না থাকলে উপরে বর্ণিত কমিটি স্থানীয় অন্য কোন প্রার্থী / প্রার্থীদের মধ্য থেকে মসজিদ কমিটি / কমিউনিটির লিখিত প্রত্যায়ন এবং অনাপত্তিপত্র গ্রহণ সাপেক্ষে উপযুক্ত শিক্ষক বাছাইয়ের ব্যবস্থা করবেন ।

(ঙ) উপজেলা পর্যায়ের কমিটির মাধ্যমে প্রাথমিকভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার পর শিক্ষাবর্ষের মাঝামাঝি সময়ে / শিক্ষাবর্ষ শুরুর পর কোন শিক্ষক স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নিলে / অন্যত্র চলে  গেলে বা বাতিল হলে বা বছরের যে কোনো সময়ে বিশেষ বরাদ্দপ্রাপ্ত কোন শিক্ষককে প্রধান কার্যালয় থেকে নিয়োগের জন্য পত্র প্রেরণ করা হলে জেলা কেন্দ্র নির্বাচন কমিটি কেন্দ্রের পরিবর্তিত শিক্ষক এবং বিশেষ বরাদ্দপ্রাপ্ত শিক্ষককে যাচাই - বাছাই করে সকল বিষয় নীতিমালা মোতাবেক আছে কিনা তা দেখে শিক্ষক নির্বাচন করবেন ।

(চ) উপজেলা পর্যায়ের কমিটির মাধ্যমে প্রাথমিকভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার পর  বছরের যে কোনো সময়ে পরিবর্তিত শিক্ষক নির্বাচনের জন্য উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক বাছাই কমিটির শরনাপন্ন হওয়ার প্রয়োজন নাই । এরুপ ক্ষেত্রে সমস্যা বা ত্রুটি চিহ্নিত হলে তা প্রকল্প কার্যালয়কে পরবর্তী নির্দেশনার জন্য লিখিতভাবে অবহিত করতে হবে এবং প্রকল্প কার্যালয়ের লিখিত উত্তরেরভিত্তিতেই ব্যবস্থা নিতে হবে।


৩। শিক্ষক নির্বাচনের পূর্বে তাকে ভালভাবে যাচাই বাছাই করতে হবে যাতে কেন্দ্র চালু হওয়ার পর শিক্ষাবর্ষ শেষ হওয়া অবধি ( জানুয়ারী ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত ) তিনি কার্যক্রম চালাতে পারেন । বাছাইকৃত প্রার্থীকে পত্র দ্বারা জানাতে হবে । উক্ত পত্রে তিনি কত তারিখ থেকে দায়িত্বপালন করবেন এবং শিক্ষক হিসেবে তাকে কী কী দায়িত্ব পালন করতে হবে তার উল্লেখ থাকবে ।


৪। নীতিমালা মোতাবেক প্রয়োজনীয় শিক্ষার্থী পাওয়া না গেলে একই উপজেলার মধ্যে অন্যত্র কেন্দ্র স্থানান্তর করা যাবে।


৫। শিক্ষক নির্বাচনের ক্ষেত্রে মসজিদ কমিটি এবং কমিউনিটির কমপক্ষে ২ জন বিশিষ্ট ব্যক্তির সুপারিশ / প্রত্যায়ন পত্র গ্রহণ করতে হবে (নাম , ঠিকানা , মোবাইল নম্বকরসহ) । কেন্দ্র পরিচালনার ক্ষেত্রে তাঁদের সার্বিক সহযোগিতা করার অঙ্গিকার থাকতে হবে ।


৬। জুলাই থেকে ডিসেম্বর সময়ে কোন নতুন শিক্ষক নির্বাচন করা যাবে না । তবে এ সময়ে বিশেষ কারণে বা অবস্থার প্রেক্ষিতে বা বিশেষ বিবেচনায় প্রকল্পের স্বার্থে কোন শিক্ষক নির্বাচনের প্রয়োজন হলে তা পরবর্তী শিক্ষা বর্ষের শুরু অর্থাৎ জানুয়ারী থেকে নিয়োগের শর্তে প্রাথমিকভাবে নির্বাচন করার জন্য সুপারিশ গ্রহণ করা যাবে । বিশেষ বিবেচনায় নির্বাচিত উক্ত শিক্ষককে নতুন বছর শুরুর প্রাক্কালে সাধারণ বরাদ্দকৃত কেন্দ্রের সাথে উপজেলা পর্যায়ের কেন্দ্র ও শিক্ষক নির্বাচন কমিটি (মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অনুমোদনক্রমে প্রশাসনিক মন্ত্রণালয়ের জিও অনুযায়ী) কর্তৃক বিধি বিধান অনুসরণ করে প্রক্রিয়াকরণের মাধ্যমে যাচাই বাছাই করে কেন্দ্রের শিক্ষক হিসেবে পদ্ধতিগতভাবে পাঠদানের যোগ্যতা আছে কিনা তা যাচাই করতঃ প্রাথমিক নির্বাচন সম্পন্ন করে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য প্রকল্প কার্যালয়ে প্রেরণ করতে হবে । কেন্দ্রের শিক্ষক হিসেবে পদ্ধতিগতভাবে পাঠদানের সক্ষম না হলে প্রার্থীকে শিক্ষক হিসেবে নির্বাচন করা যাবে না। 


৭। জুলাই থেকে ডিসেম্বর সময়ে বিশেষ বিবেচনায় পরবর্তী শিক্ষাবর্ষের কেন্দ্র থেকে বরাদ্দকৃত কেন্দ্র এবং শিক্ষাবছর শুরুর প্রাক্কালে জেলার জনসংখ্যার ভিত্তিতে বরাদ্দকৃত কেন্দ্র উপজেলা পর্যায়ের কেন্দ্র ও শিক্ষক নির্বাচন কমিটি (মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অনুমোদনক্রমে প্রশাসনিক মন্ত্রণালয়ের জিও অনুযায়ী) কর্তৃক নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার পরবর্তী তারিখ থেকে জুন পর্যন্ত সময়ের মধ্যে সংরক্ষিত কেন্দ্র থেকে বিশেষ বিবেচনায় প্রকল্পের স্বার্থে কোন কেন্দ্র বরাদ্দ প্রদান করা হলে তার শিক্ষক নির্বাচন করার জন্য বিভাগ / জেলা অফিসের জন্য প্রযোজ্য ০২ নং অনুচ্ছেদে বর্ণিত কমিটির মাধ্যমে কেন্দ্রের শিক্ষক হিসেবে পদ্ধতিগতভাবে পাঠদানে সক্ষম কীনা তা যাচাই করে শিক্ষাবর্ষের অবশিষ্ট সময়ে প্রয়োজনে অতিরিক্ত সময়েও পাঠদান করে কোর্স সম্পন্ন করার শর্তে প্রাথমিক নির্বাচন সম্পন্ন করে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য প্রকল্প কার্যালয়ে প্রেরণ করতে হবে । কিন্তু পাঠদানে সক্ষম না কাউকেই শিক্ষক হিসেবে নির্বাচন করা যাবে না।

তথ্য সুত্রঃ কেন্দ্র পরিদর্শন রেজিস্ট্রার ২০২২ ইং।