ঈদুল আজহার দিনের আমল।


♻️সুন্নাত ও মুস্তাহাব ♻️

•  সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠা । 

•  মিসওয়াক করা ।

• গোসল করা ।

•  যথাসম্ভব উত্তম পোশাক পরিধান করা ।

•  শরিয়তসম্মত সাজসজ্জা করা ।

•  সুগন্ধি লাগানো ।

•  কুরবানির ঈদে সকাল বেলায় কিছু না খেয়ে থাকা এবং নামাজের পর সকাল সকাল কুরবানি করে আল্লাহর জিয়াফত অর্থাৎ , কুরবানির গোশত দ্বারা খাদ্য গ্রহণ করা ঈদুল আজহার সুন্নাত এবং আল্লাহর তাজিমের নিদর্শন ।

•  ঈদের নামাজ ঈদগাহে পড়া । তবে জরুরতের সময় মসজিদে পড়া যায় ।

• পায়ে হেঁটে ঈদের নামাজ পড়তে যাওয়া ।

• এক রাস্তা দিয়ে যাওয়া এবং অন্য রাস্তা দিয়ে               আসা।

• আগেভাগে ঈদগাহে গমন করা ।

• ঈদুল আজহায় উচ্চ শব্দে নিম্নোক্ত তাকবির বলা *

الله اکبر الله اکبر لا اله الا  الله والله اکبر الله کبر ولله الحمد. 

♻️বর্জনীয় ও কুসংস্কার♻️

•  ঈদ মুবারক বলা ।

•  ঈদের নামাজের পর মুসাফাহা ও মুআনাকা করা। 

•  জামাতবদ্ধ হয়ে গুরুত্বের সাথে কবর জিয়ারত করা । তবে এককভাবে করা যেতে পারে ।

•  ঈদুল আজহার দিনসমূহে হাস - মুরগি ইত্যাদি জবাই করাকে নিষিদ্ধ মনে করা ।

•  ঈদুল আজহায় সকাল থেকে নিজ কুরবানির গোশত দিয়ে আহার করা পর্যন্ত মধ্যবর্তী সময়টাকে রোজা বলে আখ্যায়িত করা । 

♻️কুরবানির পশু জবাই করার পদ্ধতি♻️

•  নিজের কুরবানির পশু নিজহাতে জবাই করা উত্তম ।

• নিজে জবাই করতে না পারলে কিংবা না করলে জবাইয়ের সময় সামনে থাকা ভালো । তবে কুরবানিদাতা মহিলা হলে সামনে থাকার প্রয়োজন নেই ।

•  প্রথমে কুরবানির পশুকে মাটিতে শুইয়ে দিয়ে তার মুখ কিবলামুখী করবে এবং যে জবাই করবে , তার মুখও কিবলামুখী করে দাঁড়াবে । এরপর কুরবানির দোয়া পড়ে ‘ বিসমিল্লাহি আল্লাহু আকবার ' বলে জবাই শুরু করবে । 

• কুরবানির দোয়া পড়া উত্তম , জরুরি নয় । তাই দোয়া না পড়ে শুধু ‘ বিসমিল্লাহি আল্লাহু আকবার ' বলে জবাই করলেও হবে ।  

♻️পশুর চামড়া সম্পর্কিত মাসায়েল ♻️

•   কুরবানির পশুর চামড়া দান করা মুস্তাহাব । তবে বিক্রি করলে তার মূল্য সাদকা করা ওয়াজিব । এক্ষেত্রে মাদরাসার লিল্লাহ বোডিং - এ চামড়া বা তার মূল্য দান করলে সাদকায়ে জারিয়ার সাওয়াব পাওয়া যায় । এ ছাড়া ফকির মিসকিনকে দান করা যায় । ( ফতোয়া শামি , ৯/৪৭৫ # ফতোয়া হিন্দিয়া , ৫/৩০১ )। 

•  কুরবানিদাতা চাইলে কুরবানির পশুর চামড়া শুকিয়ে বা প্রক্রিয়াজাত করে নিজে ব্যবহার করতে পারে । ( ফতোয়া শামি , ৯/৪৭৫ )। 

•   কুরবানির চামড়ার মূল্য মসজিদ মাদরাসার নির্মাণ কাজে ও কোনো সংগঠন সংস্থায় দেয়া বা বেতন - পারিশ্রমিক বাবদ এবং অন্য কোনো কাজে খরচ করা বৈধ নয় । ( ফতোয়া শামি , ৯/৪৭৫ ) ।